১. হজ্জে যাবে কারা? তাদের গুনাবলী কি কি?

উত্তর: হজ্জে যাবে বোধসম্পন্ন ব্যক্তিগণ (২:১৯৭)। হজ্জে যাবে মুসেনিন (২:১৯৫)। মুসেনিন তারাই যারা সালাত প্রতিষ্ঠিত করে ও যাকাত দেয় (৩১:২-৫)।

২. হজ্জ হবে কখন?

উত্তর: হজ্জের মাস চারটি (৯:২-৫)।প্রথম হজ্জ হবে রমযান মাসে (২:১৮৫, ১৮৯)।হজ্জ (বিধান সভা) হবে দুই/তিন দিন (২:২০৩)।

৩. হজ্জ হবে কোথায়?

উত্তর: মানব জাতির সর্বপ্রথম গৃহে, বাক্কায় (৩:৯৬)।হজ্জ (বিধান সভা) হবে মসজিদুল হারামের মধ্যে (৪৮:২৭; ২:১৮৯; ৩:৯৭)।

৪. কুরবানী করবে কারা? তাদের গুনাবলী কি কি?

উত্তর: কুরবানী করবে মুত্তাকীরা (৫:২৭)।মুত্তাকীন তারাই যারা সালাত প্রতিষ্ঠিত করে ও যাকাত দেয় (২:১৭৭; ৯২:৫-২০)।যারা সত্যকে সত্য জেনে মানে, অর্থাৎ মুহসেনিন (৩৯:৩৩-৩৫)।আল্লাহর স্মরণে যাদের হৃদয় কম্পিত হয়, অর্থাৎ মু‘মিন (২২:৩৪-৩৫; ৮:২-৪; ৯:৭১-৭২)।

৫. কুরবানীর স্থান কোথায়?

উত্তর: কুরবানীর স্থান বায়তিল আতিকের (প্রাচীন গৃহের) নিকট (২২:৩৩)।

৬. হাজীদের কে কে কুরবানী করবে?

উত্তর : যারা সামর্থবান তারাই কুরবানী করবে। তবে প্রত্যেক হজ্জ করার ব্যক্তিকেই কুরবাণী করতে হবে এমনটি নয়। হাদিয়া (হাদঈয়া যার অর্থ উপহার) পশু ছাড়াও অর্থ বা অন্য উপহারও হতে পারে যা বায়তুল হারামের ব্যবস্থাপকদের কাছে পৌছাতে হবে। (২:১৯৬)

৭. হজ্জের ঘোষণা করবে কে?

উত্তর : হজ্জের ঘোষণা করবে ইমাম (২২:২৭; ২১:৭৩) বা হজ্জ ব্যবস্থাপনা কমিটির পক্ষ থেকে একজন। যেমন- বাংলাদেশের সংসদ ভবনে আহ্ববান করা হয়, নির্বাচিত ব্যক্তিরা বিধান সভা করতে সংসদ ভবনে যায়। মুসলিমদের হজ্জে (বিধান সভায়) বিশ্বের নির্বাচিত ব্যক্তিরা যাবে।


ভাবনার জন্য অতিরিক্ত কিছু প্রশ্ন:

ক. ঘরে ঘরে কুরবানী হয় কার নির্দেশে?

খ. আল্লাহ কি বলেছেন পশু যবেহ-এর উৎসব করলে পূণ্য হয়?

গ. সালাতুল ঈদ নামে আল্লাহ কোন সালাত পড়তে বলেছেন কি?

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।